তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে কোন ফেসওয়াস ভালো?

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on pinterest

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে কোন ফেসওয়াস ভালো হবে এমন প্রশ্ন আমাকেও করতে হয়। কারণ, আমার তৈলাক্ত ত্বক হবার কারণে ঘুম থেকে উঠার পর দেখি পুরো মুখ তেলে ভরে আছে। মুখে তেল থাকার কারণে উটকো দুর্গন্ধও বের হয়। এদিকে আবার চোখে চশমা পরি বলে নাকের সাথে চশমা থাকতেই চায় না! টিস্যু দিয়ে মুখ পরিষ্কার করলে বোঝা যায় তৈলাক্তর পরিমান কত।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে অনেক প্রকারের ফেসওয়াস ব্যবহার করেছি। খুব বেশি উপকার হয়নি। আর ফেসওয়াস গুলো ত্বকের সাথে মিল না হবার কারণে ব্রণ হয়েছে। এরপর পরিচিত একজন ডাক্তার বললেন, আমাদের ত্বকে একধরণের স্তর থাকে যাকে ‘পিএইচ স্তর’ বলে। এটার পরিমাণ মুখে যত কম হয় ততই আমাদের জন্য ভালো। কিন্তু সাবান এবং বেশির ভাগ ফেসওয়াস গুলোতে পিএইচের পরিমাণ বেশি হবার কারণে এগুলো মোটেই ব্যবহার করার উপযোগী না। স্পেশালি আমার মতন যারা তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন নিতে চান।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে ফেসওয়াস ব্যবহার করা কী খুবই দরকার?

অবশ্যই! আমাদের ত্বকে অসংখ্য লোমকূপ/ছিদ্র রয়েছে। এই লোমকূপ গুলোতে ময়লা জমে থাকে যা আমাদের ফেসওয়াস দিয়ে পরিষ্কার করতে হয়। মুখে ঘাম হলে টিস্যু বা রুমাল দিয়ে সাময়িক ভাবে পরিষ্কার হয়। কিন্তু ময়লা থেকেই যাচ্ছে।

এরপর থেকেই শুরু হলো আমার ফেসওয়াস খোঁজার পালা। আমার প্রয়োজন, মুখের তৈলাক্ত ভাব দূর করা, ময়লা পরিষ্কার করা এবং ঘরের বাইরে গেলে সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি থেকে মুখ কে রক্ষা করা। যেহেতু আমি মুখে অন্যান্য কিছু ব্যবহার করি না। এক প্যাকেজে সমাধান প্রয়োজন ছিলো।

ইচ্ছা ছিলো এবার অর্গানিক ফেসওয়াস ব্যবহার করার। শুধু অর্গানিক হলেই হবে না। আমার সমস্যা দূর করতে পারবে এটাই মূল ছিলো। রিসার্স করতে গিয়ে একটি ফেইসওয়াসের খোঁজ পেলাম। ‘এক্সিলেট অরেঞ্জ ফেসওয়াস’ নাম।

ফেসওয়াসটি অর্গানিক হবার কারণে এতে রয়েছে অরেঞ্জ, এলোভেরা, ভিটামিন সি সহ আরো উপদান আছে। বিশেষ করে ভিটামিন সি। এটা সকল ফেসওয়াসে থাকে না। এবং আমার প্রয়োজন ছিলো সান প্রটেকশন। সাথে মুখের তৈলাক্ত ভাব দূর করবে। আর বোনাস হিসেবে এন্টি এজিং আছে। আমরা প্রায় দেখি যে বয়স অল্প হলেও মুখে ভাজ পরে যায়। এটা থেকেও মুক্ত রাখবে।

ফেসওয়াস অর্ডার করার আগে তাদের কাছে জিজ্ঞাসা করলাম, আমার সমস্যা দূর হবে কিনা? তারাও আশ্বস্ত করলো, নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারবো। অর্ডার করলাম। এখন প্রায় ২ সপ্তাহ ধরে ব্যবহার করছি।

আমার তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে ২ সপ্তাহ নিয়মিত ব্যবহার করার পর যে পরিবর্তন লক্ষ্য করছি তা শেয়ার না করলেই নয়।

আমার তৈলাক্ত ভাব এখনো রয়েছে। তবে অন্যান্য ফেসওয়াস ব্যবহার করেও এত কমে আনা সম্ভব হয়নি। এর জন্য আমি খুব আশাবাদী। ঘুম থেকে উঠার পরের দুর্গন্ধ ভাবটিও আগের মতন কড়া মনে হচ্ছে না। সবচেয়ে আশার ব্যাপার হলো, সান প্রোটেকশন। সান প্রোটেকশন ক্রিম ব্যবহার করিনি এর আগে। কিন্তু এই ফেসওয়াস ব্যবহার করে ঘরের বাইরে গেলে আগের মতন সূর্যের কড়া ভাবটি আর মুখে লাগে না। অবশ্যই এটা আমার জন্য নতুন অভিজ্ঞতা বটে। তাদের কাছে আমার ফিডব্যাক বলার পর তারা বললো, আরো কিছুদিন নিয়িমিত ব্যবহার করতে। এতে আরো পরিবর্তন দেখতে পারবো।

অরেঞ্জ ফেসওয়াসটি ছেলে এবং মেয়েরা উভয়েই  ব্যবহার করতে পারবেন। আর এই ফেসওয়াস যারা প্রস্তুত করেছেন তারা আমাদের বাংলাদেশি কোম্পানি। নিজস্ব উৎপাদন এবং রিসার্স ফ্যাক্টরি রয়েছে। শুধুমাত্র ফেসওয়াস নয়, তাদের আরো বেশকটি অর্গানিক প্রোডাক্ট রয়েছে যা এখন থেকে আলাদিনের কাছে পাবেন।

আলাদিনের কাছ হতে যারা নিয়নিত বোরকা, টুনিক, ডেনিম ক্রয় করেছেন তারা অবশ্যই জানেন, আমরা প্রডাক্টের মান নিয়ে কতটুকু চিন্তা করে থাকি। সেই ভরসার জায়গা হতেই বলতে পারছি, এই অরেঞ্জ ফেসওয়াসটিও আপনার বিশ্বাস অর্জন করতে পারবে।

আমার মতন আপনিও নিজের তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন নিতে চাইলে অবশ্যই এই অরেঞ্জ ফেসওয়াসটি অন্তত ২ সপ্তাহ ব্যবহার করতে অনুরোধ করব। এরপরই না হয় নিজের পরিবর্তনটা বুঝতে পারলেন।

শুধুমাত্র তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন নয়, আপনার মুখে যদি ব্রণ বা কালো দাগ থাকে, অনেক ফেইসওয়াস ব্যবহার করেছেন কিন্তু কোনো প্রকার ফলাফল পাচ্ছেন না তাহলে নিম, এলোভেরা ও তুলসী পাতা দিয়ে তৈরি ‘নিম-এলো-তুলসী ফেইসওয়াস‘টি আপনার জন্য রিকোমেন্ডেড করবো।

এক নজরে অরেঞ্জ ফেসওয়াসের কার্যকারিতা জেনে নেই

১. ব্রণকে শুকিয়ে ফেলতে এত স্টিয়ারিক এসিডের উপাদান রয়েছে।

২. ভিটামিন সি সমৃদ্ধ উৎস যা ত্বকের গঠন এবং রঙকে উন্নত করে।

৩. কোলাজেন পুনরুদ্ধার করতে সাহায্য করে এবং যা চামড়া দৃঢ় করে অকাল বার্ধক্য থেকে মুক্তি দেয়।

৪. ক্যালসিয়াম, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট বিদ্যমান তাই সুস্থ ত্বক স্বাস্থ্যকর এবং জ্বলজ্বলে সুন্দর হয়।

৫. মুখের ভিতরের ছিদ্র পরিমার্জন ও তৈলাক্ত নিয়ন্ত্রন করে।

৬. ত্বককে করে মসৃণ, নরম ও কোমল এবং স্বাস্থ্যকর টিস্যু বৃদ্ধির উদ্দীপনা ক্ষমতা আছে।

৭. সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি থেকে কোষের ক্ষতির বিরুদ্ধে সুরক্ষা করে।

৮. অ্যালাইন্টাইন চামড়া ত্বক ময়শ্চারাইজ করতে সাহায্য করে।

৯. বিভিন্ন স্থানে পোড়া, ক্ষত এমনকি ব্রন দূর করে।

অরেঞ্জ ফেসওয়াসের এর উপাদানসমূহ

অরেঞ্জ, এলোভেরা ,শশা, ভিটামিন সি ,গ্লিসারিন ,পেঁপে ,পি ই জি-৪০০জি-৪০০,এম পি পি , এম পি এস, সিএপিবি , পলিমার , বুস্টার , পারফিউম ইত্যাদি ।

Subscribe to our Newsletter

সম্পর্কিত আরো লেখা সমূহ

//graizoah.com/afu.php?zoneid=3546031