মানুষের দেহের জন্য তুলসী চায়ের উপকারিতা

মানুষের দেহের জন্য তুলসী চায়ের উপকারিতা

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on pinterest

চা অনেকেরই প্রিয় একটি পানীয়। বিশ্বব্যাপী হরেক রকমের চায়ের প্রচলন রয়েছে। তাদের রয়েছে নিজস্ব উপকারিতা। আমাদের দেশে সাধারণত আদা চা, সবুজ চা, নিম চা ছাড়াও আরো কয়েকটি চা পানের প্রচলন রয়েছে। এদের মধ্যে তুলসী চা রয়েছে। আর তুলসী চায়ের উপকারিতা অন্যান্য চায়ের চেয়ে অনেক বেশি।

তুলসী চায়ের উপকারিতা

এই তুলসী চা শরীর থেকে বিষাক্ত টক্সিন দূর করতে সাহায্য করে। এবং এতে আছে প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্টস এবং ক্যাফেইন যা শরীরের ইমিউন সিস্টেম-কে এনার্জি প্রদান করে। সর্দি-কাশি তো বটেই, পেটের বাড়তি মেদ ঝটপট ঝরিয়ে ফেলতেও তুলসী চা অত্যন্ত কার্যকরী একটি ওষুধি পানীয়।

তুলসী চা শারীরিক ও মানসিক অবসাদ দূর করে, মস্তিষ্কে অক্সিজেনের সরবরাহ বাড়াতে সাহায্য করে তাছাড়া শ্বাসকষ্ট, কফ-কাশি দূর করতে ও ধুমপানের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে মুক্তি পেতে চাইলে নিয়মিত তুলসী চা পান করতে হবে।

তুলসী চায়ের উপকারিতা শুধুমাত্র বলেই শেষ করা যাবে না। আমরা আলাদিন ক্লোথিং নিয়মিত তুলসী চা পাণ করছি বলেই এর উপকারিতা সরাসরি বুঝতে সক্ষম হচ্ছি। আমাদের সাথে আপনিও না হয় একটু ট্রাই করে দেখলেন?

তাই আলাদিনের সকল শুভাকাঙ্ক্ষীদের জন্য থাকছে আমাদের অর্গানিক তুলসী চা।

তুলসী চা পছন্দ করেন না? কোন সমস্যা নেই। আমাদের কাছে আরো ৩ রকমের চা পাচ্ছেন। যারা খুব স্বাস্থ্য সচেতন তাদের জন্য রয়েছে স্লিম টি। গ্রিন টি ভালবাসলে রয়েছে অর্গানিক গ্রিন টি। ডায়াবেটিস মানুষের জন্য রয়েছে ডায়াবেটিস চা।

আরো তুলসী চায়ের উপকারিতা

১. সর্দি, ঠান্ডা-কাশি, সাইনোসাইটিস ও শ্বাস-প্রস্বাসের প্রতিরোধ করে।

২. জিবানু, ছত্রাক ও ব্যাক্টেরিয়া দ্বারা স্রিস্ত জ্বর ও ম্যালেরিয়া জ্বরের উপশমের জন্য উপকারী

৩. বিটা-ক্যারোটিন, ভিটামিন এ চোখের রাতকানা রোগ দূর করে।

৪. অ্যারোমেটিক এভেবারেজ, কর্টিসেল, ও ফ্রি রেডিকেলের মাত্রা কমিয়ে মানসিক চাপ দূর করে।

৫. নার্ভ টনিক, পাকস্থলীর শক্তি বৃদ্ধি ও বেশি ঘাম নিঃসৃত হতে সাহায্য করে

৬. ইউজেনল, মিথাইল ইউজেনল ও ক্যারিওফাইলিন ইন্সুলিন বৃদ্ধি করে ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণ করে।

৭. ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা হ্রাস করে কিডনিকে পরিষ্কার করে এবং অ্যাসেটিক অ্যাসিড, অ্যাসেনশিয়াল অয়েল কিডনির পাথর ভাঙতে সাহায্য করে। 

৮. অ্যান্টি কারসেনোজেনিক ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ব্রেষ্ট ও ওরাল ক্যান্সার এবং টিউমার প্রতিহত করে।

৯. মুখের দুর্গন্ধ, আলসার ও ইনফেকশন দূর করে এবং শ্বেতীরোগের চিকিৎসায় বিশেষভাবে কার্যকারী।

উপাদান

তুলসি, স্টেভিয়া, আদা, লেমন ও অন্যান্য উপকরন।

চা তৈরির নিয়ম

ফুটন্ত গরম ১ কাপ পানির মধ্যে ১টি ব্যাগ রেখে ১-২ মিনিট নাড়াচাড়া করুন। প্রয়োজনমত চিনি অথবা দুধ মেশান। টি ব্যাগ যত বেশি গরম পানির কাপে থাকবে, ততবেশি কার্যকারিতা বৃদ্ধি পাবে।

শীতকালে তুলসীর উপকারিতা ডা. আলমগীর মতি
তুলসীগাছের পাতা, বীজ, ডাল প্রায় সবই উপকারী। এতে আছে ভিটামিন – সি ও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। সর্দি, কাশি, নাক দিয়ে পানি পড়া, জ্বরজ্বর ভাব দূর করার জন্য তুলসী পাতার রস ভালো কাজে দেয়। এ জন্য তুলসী পাতা সিদ্ধ করে সেই পানি দিয়ে গড়গড়া করলে মুখ ও গলার রোগজীবাণু মরে যায়, শ্লেষ্মা দূর হয়, মুখের দুর্গন্ধ চলে যায়। তুলসী পাতা কয়েক ফোঁটা মধু বা লেবুর রস মিশিয়ে চিবিয়ে খেলে ফুসফুস, কন্ঠনালি, দাঁতেরগোড়া,মাড়ি ভালো থাকে।পাতার রস পেটব্যথা, পাকস্থলীর রোগজীবাণু থেকে দূরে রাখে, রক্ত পরিষ্কার করে। ম্যালেরিয়া জ্বরে তুলসী পাতা চিবিয়ে খেলে জ্বর পালিয়ে যায়।

Subscribe to our Newsletter

সম্পর্কিত আরো লেখা সমূহ