হুরে মদিনাঃ প্রেমের এক সত্য কাহিনী

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on pinterest

আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর একজন কালো সাহাবী ছিল, সকল সাহাবীদের মধ্যে তিনিই বেশি কালো ছিলেন। একদিন সেই সাহাবীকে নবীজি বললেন “তুমি সারাক্ষন আমার সাথেই থাক, তাই তোমার কাছে আমি কিছু জানতে চাই” 

নবীজির কাছে তিনি মাথা নিচু করে বললেন , হুজুর আমার জান হাজির। আপনি শুধু বলুন আপনি কি জানতে চান। নবীজি বললেন তোমার বিয়ের সময় হয়েছে, তুমি কি তার জন্য প্রস্তুত? কালো সাহাবী মাথা নেড়ে বললেন, হুজুর আমি যে এতো কালো আমার কাছে কে মেয়ে বিয়ে দিবে? 

নবীজি বললেন, তুমি বিয়ে করবে কিনা বল। আমি তোমার জন্য মেয়ে দেখবো। এই কথা শুনে কালো সাহাবী খুশিতে কেঁদে ফেললেন আর বললেন হুজুর আপনি আমার জন্য মেয়ে দেখবেন এর চেয়ে আমার কাছে বড় আর কি হতে পারে, আমি রাজী। 

নবীজি একটি পত্র লিখে সাহাবীর হাতে দিয়ে বললেন এই পত্রটি মদিনার বড় বাড়িতে গিয়ে মালিকের হাতে দিয়ে উত্তর জেনে তার পরে আসবে। সাহাবী জানতেন না ঐ পত্রে কি লেখা আছে। নবীজির কথা অনুযায়ী তিনি সেই বড় বাড়িতে গিয়ে পত্রটি দিয়ে আসলেন। নবীজির কথা শুনে বাড়ির মালিক দ্রুত পত্রটি খুলে ফেললেন।

পত্রটিতে লেখা ছিল, আসসালামুয়ালাইকুম আমি মোহাম্মদ (সা) আপনার কাছে আমার কালো সাহাবীর জন্য আপনার মেয়ের বিয়ের প্রস্তাব দিলাম। আশা করি আমার প্রস্তাব আপনি গ্রহন করবেন এবং আমার কালো সাহাবীর সাথে আপনার সুন্দরী মেয়ের বিবাহ দিবেন। ইতি হযরত মোহাম্মদ (সা)।

বড় বাড়ির মালিক পত্রটি পড়ে কেঁদে ফেললেন আর বললেন, আমার এক মাত্র মেয়ে যাকে মদিনায় সবাই ডাকে হুরে মদিনা বলে ( কিতাবে আছে যে মেয়েটি এতো সুন্দর যার কারনে হুরে মদিনা বলে ডাকতো ) । এখন আমি কি করি, নবীজি বলেছেন এতো অনেক আনন্দের কথা কিন্তু ছেলেটি যে অনেক কালো। 

মালিক বিভিন্য চিন্তায় চিন্তিত হয়ে পরলেন। সাহাবী বললেন নবীজি পত্রে কি লিখেছেন এবং তার উত্তর নিয়ে তবেই তাকে ফিরতে বলেছেন। মালিক বলল নবীজি বলেছেন তার মেয়ের সাথে সাহাবীর বিয়ের দেয়ার জন্য। বাবা তুমি এখন যাও, নবীজিকে বলবে আমি আমার মেয়ের সাথে পরামর্শ করে খবর পাঠিয়ে দিব।

নবীজির কালো সাহাবী মন খারাপ করে ফিরে যাচ্ছে। এমন সময় ঐ মেয়েটি দৌড়ে এসে বললো, বাবা দেখলাম একটি লোক আসলো হাসিমুখে কিন্তু যাবার সময় মন খারাপ করে যাচ্ছে কারন কি? বাবা মেয়ের কাছে সব কিছু খুলে বললেন।

কথাটা শুনে মেয়েটি খুশিতে আত্মহারা হয়ে বলল বাবা কি বলছেন ? নবীজি পত্র লিখেছেন আমার বিয়ের প্রস্তাবের জন্য আর আপনি ফিরিয়ে দিলেন। বাবা ঐ সাহাবী নবীজির কাছে পৌছার আগেই তাকে ফিরিয়ে নিয়ে আসুন, নাহয় যে আল্লাহ্‌র কাছে আমরা অপরাধী হয়ে যাব। 

বাবা নবীজি পত্র লিখেছেন, এতে মনে হয় মদিনার সব চেয়ে মূল্যবান ও সৌভাগ্যবতী মেয়ে আমি। মেয়ের মুখে এই কথা শুনে বাবা আলহামদুলিল্লাহ্‌ বলে সাহাবীকে ফিরিয়ে আনলেন এবং বললেন, তুমি যে আমার মেয়েকে বিয়ে করবে তো দেনমহর হিসেবে কি দিবে? 

কালো সাহাবী বললেন, আমার কাছে নবীজির ভালবাসা ছাড়া আর কিছুই নেই। তখন মেয়েটি তার বাবাকে বলল বাবা আপনার তো অনেক টাকা আজ নবীজির ভালবাসায় দেনমোহরের জন্য কিছু টাকা ওকে দিয়ে দিন। মালিক আবারো বললেন বিয়ে যে করবে কিছু কেনাকাটা কি করেছ আমার মেয়ের জন্য? সাহাবী উত্তরে বললেন আমার কাছে কোণ টাকা নেই। 

তখন মেয়েটি তার বাবাকে বললো, নবীজির ভালবাসার খাতিরে কেনাকাটার জন্যও কিছু টাকা তাকে দিয়ে দিন। অবশেষে মদিনার বড় বাড়ির মালিক নবীজির ভালবসার খাতিরে কালো সাহাবীর হাতে কিছু টাকা দিয়ে বললেন, যাও বিয়ের বাজার করে নিয়ে আস। নবীজির কথায় আজকের ভিতর ই আমি আমার মেয়ের সাথে তোমার বিবাহ করিয়ে দিব। 

সাহাবী মনের আনন্দে বিয়ের বাজার করতে রওয়ানা করলেন, বাজারে গিয়ে কিছু কেনাকাটাও করলেন, হঠাত তিনি দেখলেন মানুষ দৌড়াদৌড়ি করছে। কালো সাহাবী দোকানদারকে জিগ্যেস করলেন সবাই এমন করছে কেন? দোকানের মালিক বললেন তুমি যা কেনার তা পরে এসে কিনো। আমাদের মদিনার সম্পদ, মুসলিম বিশ্বের রহমত হযরত মোহাম্মদ (সা) কে শত্রুরা আক্রমন করেছে এই বলে দোকানদার চলে গেল।

সাহাবী অন্য দোকানে গিয়ে বিয়ের বাজারে টাকা দিয়ে একটি তরবারি কিনলেন। হঠাত করে তার মনে হলো মদিনার সেই সুন্দরী মেয়ে তার জন্য অপেক্ষা করছে। তিনি নিজের মনকে বুঝালেন যে নবী না হলে আমি হতাম না, দুনিয়াও হতো না সেই নবীর চেয়ে সুন্দরী মেয়ে আমার কাছে বড় হয় কিভাবে? 

এই বলে নবীজির কালো সাহাবী তলোয়ার কিনে দৌড়ে যুদ্ধের ময়দানে চলে গেলেন। কিতাবে আছে ঐ যুদ্ধে নবীজির ৭০ জন সাহাবী শহীদ হয়েছিলেন তার মধ্যে কালো সাহাবী ছিলেন একজন। নবীজি অশ্রুসিক্ত হয়ে বললেন, আমার আদরের সাহাবীদের রক্ত মাখা অবস্থায় দাফন করে দাও, কিয়ামতের ময়দানে আমি আল্লাহ্‌র কাছে তদের রক্ত মাখা শরীর দেখিয়ে কোটি কোটি গুনাগার উম্মতের নাজাতের দাবি করবো। 

হঠাত নবীজি চোখ পরলো কালো সাহাবীর দিকে, রক্ত মাখা শরীর নিয়ে তিনি পরে আছেন। নবীজি চিৎকার দিয়ে বললেন, এই আমার কালো সাহাবীর লাশ তার আজকে বিয়ে হবার কথা ছিল। কয়েকজন বললো, হুজুর আপনার কালো সাহাবী বিয়ের বাজার করতে গিয়ে যখন শুনতে পেল শত্রুরা আপনাকে আক্রমন করেছে তখন সে যুদ্ধের বাজার করেছে।

নবীজি কান্নারত অবস্থায় কালো সাহাবীর দিকে তাকালেন এবং কিছুক্ষন পর হাসিমুখে বললেন, দাও তোমরা, আমার কালো সাহাবীর দাফন করে দাও। সাহাবীরা বললেন হুজুর বেয়াদপি মাফ করবেন, আপনি কান্নারত অবস্থায় সাহাবীর দিকে তাকালেন আবার হাসিমুখে দাফন করতে বললেন কারণটা বলবেন হুজুর? 

নবীজি বললেন, শুনো আমার কালো সাহাবী বিয়ের বাজার করতে গিয়ে যুদ্ধের বাজার করেছে। আমার ভালবাসায় ইসলামের পথে শহীদ হয়েছে, আমি তাকিয়ে দেখি ঐ হুরে মদিনা বেহেস্তি হুর হয়ে তার সেবা করছে। 

।সুবহানাল্লাহ।  

Subscribe to our Newsletter

সম্পর্কিত আরো লেখা সমূহ